আজ শনিবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিধিনিষেধ নিয়ে কী সিদ্ধান্তে যাচ্ছে সরকার?

করোনা মোকাবেলায় সরকার একাধিকবার বিধিনিষেধ আরোপ করলেও তা প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়নি। সম্প্রতি করোনা খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। প্রতিদিন আড়াইশর বেশি মানুষ করোনায় প্রাণ হারাচ্ছেন। সংক্রমিত হচ্ছেন ১৫ হাজারের কাছাকাছি। সরকারি হিসেব অনুযায়ী, এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছে ১২ লাখ ৪০ হাজার ১১৫ জন। মৃত্যু হয়েছে বিশ হাজারের বেশি। এরমধ্যে ১ আগস্ট (রোববার) থেকে খুলে দেওয়া হচ্ছে পোশাক শিল্পকারখানাগুলো।

এর আগে করোনারোধে সবশেষ ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। বিধিনিষেধ শেষ হওয়ার পর নতুন নির্দেশনা বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি সরকার।

এদিকে ৫ আগস্টের পর আরও ১০ দিন শাটডাউন (বিধিনিষেধ) বাড়ানোর সুপারিশ করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

শনিবার (৩১ জুলাই) দুপুরে জনপ্রশাসনমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, “৫ তারিখের পর কী হবে—এ বিষয়ে আমরা এখনো কোনো সিদ্ধান্তে যাইনি। ৩-৪ তারিখে আমরা জানিয়ে দেব, আমরা কী করতে যাচ্ছি? কী পরিসরে খুলবে অথবা কী হবে, সে বিষয়ে আমরা এখনও কোনো সিদ্ধান্ত পাইনি। প্রধানমন্ত্রী সিদ্ধান্ত জানাবেন। সেই অনুযায়ী আমরা ব্যবস্থা নেব।”

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরাধে আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত যে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে, তা শিথিল করার চিন্তা করছে সরকার। মানুষের জীবন-জীবিকার কথা চিন্তা করে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। তবে সবকিছুই নির্ভর করছে প্রধানমন্ত্রীর দিক-নির্দেশনার ওপর।

এদিকে বিধিনিষেধ শিথিল নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. রাজীব বিশ্বাস বলেন, “যত বেশি যাতায়াত হবে তত বেশি সংক্রমণ হবে। যত বেশি সংক্রমণ হবে প্রাকৃতিক কারণে তার শতকরা ৫ শতাংশ রোগী সঙ্কটাপন্ন হবে। মানুষ যদি সঠিকভাবে মাস্ক না পরে তাহলে সংক্রমণ স্বাভাবিকভাবেই বেড়ে যাবে। কাজেই যতক্ষণ পর্যন্ত ভ্যাকসিন না দেওয়া হবে ততক্ষণ পর্যন্ত মাস্কই আপনাকে সুরক্ষা দেবে।”

স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) সভাপতি ডা. ইকবাল আর্সনাল বলেন, “করোনা মোকাবেলায় লকডাউন একটা সমাধান মাত্র। কিন্তু সংক্রমণের হার কমানো নির্ভর করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার উপরে।”

লকডাউন আরো বাড়ানো উচিত কিনা—জানতে চাইলে তিনি আরো বলেন, “৫ তারিখের পর লকডাউন আরো বর্ধিত করা প্রয়োজন। কিন্তু শুধু লকডাউন করলে হবে না। এর পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি পালন নিশ্চিত করতে হবে।”

ডা. ইকবাল আর্সনাল আরও বলেন, “লকডাউন খুলে দিলেও মানুষের উচিত হবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা। নতুবা করোনা আরও ভয়াবহ রূপ ধারণ করবে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরো সংবাদ

ফেসবুকে খবর২৪ বিডি ডট নেট