আজ শুক্রবার, ৩০শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পাউবোর ২৭/২ নং পোল্ডারের বন্যা নিয়ন্ত্রণ বেড়িবাঁধটি মাছে গিলে খাচ্ছে!

ফকির শহিদুল ইসলাম,খুলনা
ডুমুরিয়ায় মেছাঘোনা-কার্তিকডাঙ্গা এলাকায় পাউবোর ২৭/২ নং পোল্ডারের বন্যা নিয়ন্ত্রণ বেড়িবাঁধটি মাছে গিলে খাচ্ছে! অপরিকল্পিতভাবে মাছ চাষের কারণে বাঁধের প্রায় একশ মিটার পর্যন্ত এক-তৃতীয়াংশ খোয়া গেছে।ফলে ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে ওই ভেড়ীবাধটি। জানা যায়, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন উন্নয়ন বোর্ডের ২৭/২ নং পোল্ডার আওতাধীন ডুমুরিয়ার ভরাটকৃত হামকুড়া নদীর রক্ষাবাঁধটি এখন মাছে গিলে খাচ্ছে। এক শ্রেণির কতিপয় মাছ চাষি অপরিকল্পিতভাবে মাছ চাষ করার কারণে বাঁধটির অনেক জায়গায় খোয়া গেছে। কার্তিকডাঙ্গা-মেছাঘোনা এলাকায় ২০১৮ সালে খুলনার দুই ব্যক্তি লিজ নিয়ে পোনা মাছের চাষ করছেন। এর আগে থুকড়ার জনৈক আবদুল্লাহ নামের এক ব্যক্তি ওই ঘেরে আরও ৫ বছর মাছ চাষ করে গেছেন। তাদের অপরিকল্পিত মাছ চাষের কারণে বাঁধটি ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

প্রায় এক-তৃতীয়াংশ বেড়িবাঁধ বিলীন হয়ে গেছে। সেই সঙ্গে ক্ষতি হয়েছে রাস্তায় লাগানো সামাজিক বনায়নের। মেছাঘোনা গ্রামের মো. দেলোয়ার হোসেন শেখ বলেন, মাছ চাষ এই এলাকার আরও অনেক মানুষ করছে, সেখানে তো ওয়াপদার কোনো ক্ষতি হচ্ছে না। আতিয়ারের ঘেরের অংশটুকু শুধু বাঁধের ক্ষতি হয়েছে। এখানে অপরিকল্পিতভাবে অতিরিক্ত মাছ চাষ এবং যথেষ্ট খাদ্য ব্যবহারের ঘাটতির কারণে বাঁধটি মাছে খেয়ে এমন ক্ষতি করেছে। এখন স্থানীয়রা ঘের করছে না ঘের করছে খুলনা থেকে এসে ব্যাবসায়ীরা । এর আগে থুকড়া এলাকার আবদুল্লাহ ঘের করত। তখন ওয়াপদা বাঁধের এক পাশের সকল গাছ ঘেরে ধসে পড়েছিল।

যদিও তারা ক্ষতিপূরণ দিয়েছিল। কিন্তু ওয়াপদা বাঁধের ক্ষতিপূরণ এখন কে দিবে? এ প্রসঙ্গে ঘের ব্যবসায়ী খুলনার রাজু খান বলেন, বাঁধের ক্ষতি আমাদের আগে যে ঘের করত সেই বেশি করেছে। আমরা আসার পর প্রত্যেক বছর বাঁধ মেরামত করি। তিনি বলেন, বর্তমান বাঁধের অবস্থা খারাপ, তবে আগামী সপ্তাহ খানেকের মধ্যে বাঁধটি মেরামত করব।

এ প্রসঙ্গে পানি উন্নয়ন বোর্ডের খুলনা-১ এর নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুল আলম বলেন, বাঁধটি সরেজমিনে পরিদর্শনে যাব। বাঁধের ক্ষতি হলে আমরা অবশ্যই বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্থে দায়ি ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরো সংবাদ

ফেসবুকে খবর২৪ বিডি ডট নেট